Templates by BIGtheme NET

নানা আয়জনে উদযাপিত হল বাংলাদেশের ঐতিহ্যবাহী হার্ডিঞ্জ ব্রিজের শতবর্ষ পূর্তি উৎসব (১৯১৫-২০১৫)

(মোঃ রাশিদুল ইসলাম) : বাংলাদেশের ঐতিহ্য এবং ঈশ্বরদী বাসির গৌরব এবং পৃথিবীর সবচেয়ে বৃহৎ রেলওয়ে সেতু পাকশী হার্ডিঞ্জ ব্রিজ । সেই সাথে পাকশী রেলোয়ে বিভাগীয় শহর এবং ঈশ্বরদী শহরের একশত বছর পূর্তি হল আজ । এই হার্ডিঞ্জ ব্রিজটি উদ্ভদন হই ১৯৯৫ সালের ৪ঠা মার্চ । বিভিন্ন সুত্রে জানা যায় এই ব্রিজ এর উদ্ভদন এর সাথে ঈশ্বরদী সহরের উৎপত্তি হয় । “আমাদের ঐতিহ্য আমাদের গৌরব”  এই শ্লোগানে খেলাঘর ঈশ্বরদী উপজেলা কমিটি,উদীচি ও স্পন্দন সাউন্ড সিস্টেম পাকশী,ঈশ্বরদীর যৌথ উদ্দ্যোগে এই ঐতিহাসিক ব্রিজ এর পাদদেশে জমকালো আয়োজনের মধ্য দিয়ে উদযাপিত হল একশত বছর পূর্তি উৎসব  । দিন এর শুরুতে কেক কাটা এবং নানা অনুষ্ঠান মালা,আলোচনা সভার মধ্য দিয়ে ।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথী হিসাবে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সাবেক সদস্য জনাব,আজিজুর রহমান শরীফ । শতবর্ষ উৎসব অনুষ্ঠান এর  উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক অধ্যাপক আবুল কালাম আজাদ, যুগ্ন আহ্বায়ক অধ্যাপক হাসানুজ্জামান ও অর্থ উপ-কমিটির আহ্বায়ক এনামুল ইসলাম জিন্না জানান – বিশ্ববিখ্যাত,বাংলাদেশের ঐতিহ্য এবং ঈশ্বরদীবাসির গৌরবের হার্ডিঞ্জ ব্রিজ এর একশত বছর  পূর্তি উৎসব পালন করতে আমি খুবই আনন্দ বোধ করছি । ব্যাপক সারা পেয়েছি এবং পাকশি,ঈশ্বরদীবাসি আমাদের সাথে আছে বলে মনে করছি । বিশেষ করে নতুন প্রজন্মের দৃষ্টি আকর্ষন করে বলতে চাই, আগামীর সুন্দর বাংলাদেশ গড়তে,আলকিত মানুষ তৈরিতে ,দূর্নীতি-সন্ত্রাস মুক্ত দেশ গড়তে গুরূত্তপূর্ন ইতিহাস–ঐতিহ্যকে সবার কাছে তুলে ধরতে হবে । তিনি আরো বলেন, এই অনুষ্ঠান শুধু বাংলাদেশে নয়,সারা বিশ্বকে আমরা এই বিখ্যাত বিষয়টি ইতিহাস জানিয়ে দিতে চাই । এছাড়া এ অঞ্চলের মানুষ বিখ্যাত স্থান সমুহের, আলোকিত মানুষ নিয়ে চিন্তা করে সেটাও এই অনুষ্ঠানের মাধ্যমে আমরা আশ্বস্ত করতে চাই । এসব অনুষ্ঠানে সমাজের বিশিষ্ট  ব্যাক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন ।

এ ঐতিহাসিক ব্রিজ এর শতবছর পুর্তি উপলক্ষে বিষেশ বানী দেন পাবনা ৪ আসনের এম,পি এবং গনপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারে মানণীয় ভূমি মন্ত্রী

 জনাব, শামসুর রহমান শরিফ ডিলু

তার বানীটি হল- মহান মুক্তিযুদ্ধের সৃতি বিজড়িত ঐতিহাসিক পাকশী হার্ডিঞ্জ ব্রিজ শত বছর অতিক্রম করতে যাচ্ছে এবং এ উপলক্ষে স্থানীয়ভাবে বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হচ্ছে জেনে আমি খুবই আনন্দিত । শতায়ু এই শুভ দিন্টিকে স্মরণীয় করে রাখতে যারা এর আয়োজন ক্রেছে তাদের ধন্যবাদ । একই সাথে আরো শত শত বছর টিকে থাক আমাদের ঐতিহ্যের ও গৌরবের হার্ডিঞ্জ সেতু আজকের দিনে এই আমার প্রত্যাশা ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

teletalk

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful