Templates by BIGtheme NET
11078074

তুলসী গাছের ঔষধি গুণাগুন

সবচেয়ে প্রাচীনতম ও জনপ্রিয় ভেষজ উদ্ভিদ হল তুলসী গাছ। সকল ঔষধি গাছের রাজা হল তুলসী। তুলসী গাছের বিভিন্ন ধরণের স্বাস্থ্য উপকারিতা রয়েছে। বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে বিভিন্ন ধর্মের মানুষ তুলসী গাছকে “পবিত্র ঔষধি” হিসেবে সম্মান প্রদান করেন। তুলসী গাছ Lamiaceae পরিবারের সদস্য। তার বৈজ্ঞানিক নাম Ocimum Basilicum.

তুলসী পাতার ঔষধি গুণাবলী নিচে আলোচনা করা হল-

১. তুলসী গাছের পাতাতে বিভিন্ন ধরণের কেমিক্যাল বিদ্যামান। যা শরীরের বিভিন্ন রোগ দূর করতে সাহায্য করে। শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে।

২. তুলসী গাছের পাতাতে বিভিন্ন পলিফেনলিক উপাদান যেমন- অরিএন্টিন এবং ভিচেনিন রয়েছে। এই যৌগগুলোকে ইন-ভিট্রো পরীক্ষাগারে পরীক্ষা করা হয়। তুলসীতে সম্ভাব্য কিছু অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট রয়েছে, যা যকৃতের জারণ বিকিরণ জনিত সমস্যার বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলে।

৩. তুলসী পাতায় তেলজাতীয় স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী কিছু উপাদান রয়েছে। যেমন- ইউজেনল, চিত্রনেল্লল, লিনালল, চিত্রাল, লিমনেন এবং তারপিনিওল। এসকল তেল রঙ স্বাস্থ্যের জন্য অপরিহার্য। এ সকল যৌগ প্রদাহজনিত সমস্যা দূর করে এবং ব্যাকটেরিয়ার বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলে।

৪. তুলসী পাতায় ক্যালরির পরিমাণ খুব কম থাকে এবং কোন কোলেস্টেরল থাকে না। কিন্তু এতে অত্যাবশ্যক প্রয়োজনীয় পুষ্টি, খনিজ পদার্থ এবং ভিটামিন রয়েছে। যা আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য অনেক উপকারী।

৫. তুলসী পাতায় ভিটামিন এ রয়েছে। এছাড়াও তুলসী পাতায় বি-ক্যারোটিন, লুটিয়ান, জিয়া-জান্থিন এবং ক্রিপ্টক্সান্থিন এর মত ফ্লাভেনয়েড বিদ্যামান। ভিটামিন এ এর কারনে শ্লেষ্মা ঝিল্লি সুস্থ থাকে এবং ত্বক অনেক ভাল থাকে। ভিটামিন এ সুস্থ দৃষ্টির জন্য সহায়ক ভূমিকা পালন করে ।
তুলসী পাতায় যে সকল যৌগ রয়েছে তাতে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট রয়েছে। যা শরীরকে বিভিন্ন রোগের সংক্রামণ হতে রক্ষা করে। এর মৌলে প্রাপ্ত উপাদান প্রতিরক্ষামূলক কাজ করতে সাহায্য করে।

৬. জিয়া-জান্থিন একটি হলুদ ফ্লাভানয়েড ক্যারোটিনয়েড। যা, রেটিনাকে সূর্যের ক্ষতিকর অতি বেগুনি রশ্মি হতে রক্ষা করে। গবেষণায় দেখা গেছে জিয়া-জান্থিন যে সকল ফলমূল ও শাকসবজিতে রয়েছে, সে সকল খাবার শরীরের বার্ধক্যজনিত সমস্যা রোধে সহায়তা করে। বিশেষ করে চোখের বিভিন্ন সমস্যা দূর করে।

৭. ১০০ গ্রাম তাজা তুলসী পাতায় ৫২৭৫ মিলিগ্রাম ভিটামিন এ রয়েছে। যা আমাদের শরীরের দৈনিক প্রয়োজনের ১৭৫ শতাংশ। এছাড়াও তুলসী পাতায় ভিটামিন কে বিদ্যামান। যা আমাদের শরীরের হাড় মজবুত করে।

আমরা সকলেই ঠাণ্ডার বিভিন্ন সমস্যা দূর করার জন্য তুলসী পাতার ব্যবহার করে থাকি। বাস্তবত, তুলসী পাতার দরুন ঠাণ্ডার সমস্যা দূর হবার সাথে সাথে আমাদের শরীরের বিভিন্ন ধরণের উন্নতিও সাধিত হয়।–সূত্র: নিউট্রিসন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

teletalk

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful