Templates by BIGtheme NET
internet-data

ইন্টারনেটের খরচ কমানোর ৭টি উপায়

 ইন্টারনেটের বিল দেখে মাথায় হাত? তাহলে আপনার জন্য দেওয়া হলো নিম্নের সাতটি উপায়। যা মেনে চললে আপনার ইন্টারনেটের বিল কমাতে সাহায্য করবে।

উপায়গুলো হলো :

১. স্মার্টফোনের ক্ষেত্রে ‘অন’ রাখুন ট্র্যাকিং ডেটা: প্রথম পদক্ষেপ হিসেবে নিজের স্মার্টফোনে ডেটা খরচের হিসেব রাখুন। ‘অন’ করে রাখুন ডেটা ট্র্যাকিং হিসেব।

২. বিল্ট ইন ডেটা মনিটর: ও এস-এ বিল্ট ইন ডেটা ইউসেজ ট্র্যাকার থাকে। সেটিংস অপশনে গিয়ে দেখে নিন কোন অ্যাপস সবথেকে বেশি ব্যাকগ্রাউন্ড ডেটা খরচ করেছে। বুঝেশুনে সেই অ্যাপসের ব্যাকগ্রাউন্ড ডেটা ‘ডিসেবল’ করে দিন।

৩. স্মার্টফোনের জন্য Onavo Count: স্মার্টফোনে ইনস্টল করুন Onavo Count অ্যাপসটি। তারপর আপনার কারেন্ট ডেটা প্ল্যানটির সমস্ত তথ্য দিন। এই অ্যাপসটি আপনার ডেটা খচরকে ট্র্যাক করবে ও আপনাকে নিয়মিত রিপোর্ট দেবে।

৪. মাই ডেটা ম্যানেজার: অ্যান্ড্রয়েড ও আই ও এস ফোনের জন্য ইনস্টল করুন এই অ্যাপটি। শুধু ফোনে নয়, মাল্টিপল ডিভাইসেও যদি ওয়াই-ফাই ও থ্রিজি ব্যবহার করেন, তাহলে এই অ্যাপসটি আপনাকে ডেটা ইউসেজের হিসেব রাখতে সাহায্য করবে।

৫. ব্যবহার করুন Wi-Fi: ভিডিও চ্যাটিং বা বড় অ্যাপস ডাউনলোড করার সময় ফোনের ইন্টারনেট বন্ধ রেখে ওয়াই-ফাই ব্যবহার করুন। একটি আধঘণ্টার ভিডিও চ্যাটিংয়ের জন্য ৩০০ এমবি ডেটা খচর হয়।

৬. পিসির জন্য Networx: একটি ব্রডব্যান্ড কানেকশন যদি একাধিক কম্পিউটারে ব্যবহার করেন, তাহলে Networx আপনাকে গ্রাফিক্সের সাহায্যে কত ইন্টারনেট খরচ হয়েছে, তার হিসেব দেবে। আপনি চাইলে ডেটা খরচের একটি আপার লিমিট সেট করে রাখতে পারেন।

teletalk

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful