Templates by BIGtheme NET
mrith-shilpo-picture2_108333

শেরপুরের ঐতিহ্যবাহী মৃৎশিল্প হারিয়ে যাচ্ছে

শেরপুর : জেলার সীমান্তবর্তী ঝিনাইগাতী উপজেলায় সময়ের পরিবর্তনে হারিয়ে যাচ্ছে ঐহিত্যবাহী মৃৎশিল্প। মৃৎশিল্পীরা পূর্ব পুরুষদের পেশা ছেড়ে অন্য পেশায় জড়িয়ে পড়ছেন। দেশের সিংহভাগ মানুষ প্লাস্টিকসামগ্রী ব্যবহার করায় এ শিল্পের মূল্য দিন দিন কমে যাচ্ছে।

বিগত সময়ে উপজেলার ধানশাইল, মালিঝিকান্দা, চাপাঝোড়া, কার্লিবাড়ী, বিলাসপুরসহ প্রায় ৯/১০টি গ্রামে অর্ধ হাজার পরিবার এ পেশায় নিয়োজিত ছিল। কিন্তু বর্তমানে এ শিল্পকে ধরে রাখার জন্য প্রতিনিয়িত জীবনের সাথে সংগ্রাম করে যাচ্ছে এখন মাত্র ৫০-৬০টি পরিবার। মৃৎশিল্পী লিটন চন্দ্র দাস জানান, বর্তমানে মৃৎশিল্পের এখন নাজুক অবস্থা। নির্মাণ খরচ এবং আধুনিকতার সাথে পাল্লা দিয়ে টিকে থাকা বড় কঠিন হয়ে পড়েছে। কয়েক বছর আগেও স্থানীয়ভাবে বিনামূল্যে মাটি সংগ্রহ করা গেলেও বর্তমানে ব্যাপকভাবে বোরো চাষ হওয়াতে এই কাজে কেউ বিনা মূলে মাটি দিতে চাই না। তাই বর্তমানে এই কাজের জন্য বিভিন্ন গ্রাম থেকে অনেক চড়া দামে মাটি ও লাকরি সংগ্রহ করে নির্মাণে ব্যয় হয় অনেক বেশি। এ সকল কারণে এই মৃৎশিল্পের ব্যবসা টিকিয়ে রাখতে হিমশিম খাচ্ছে। এছাড়াও তৈরিকৃত মৃৎশিল্প শুকানো ও মজুদ করার জন্য বড় চালা সিস্টেমের কোনো ঘর না থাকায় বৃষ্টির মৌসুমে ব্যাপক ক্ষতির সম্মুখীন হতে হয়।

এ ব্যাপারে উপজেলা চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম বাদশা জানান, এ শিল্পকে সরকারিভাবে উদ্যোগ গ্রহণ করে টিকিয়ে রাখতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থাগ্রহণ করলে প্রতি বছর বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করা সম্ভব তেমনি অত্র অঞ্চলের হাজার হাজার বেকারদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থাও হবে।

teletalk

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful