Templates by BIGtheme NET
FB_IMG_1505136273756

সংস্কারের অভাবে  ব্যবহারের অনুপযোগী টিএসসির টয়লেট, শিক্ষার্থীদের ক্ষোভ

ঢাবি প্রতিনিধি : সংস্কারের অভাবে  ব্যবহারের উপযোগিতা হারিয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যলয়ের টিএসসির ( ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্র) ওয়াশরুম।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, টিএসসির ওয়াশরুম সংলগ্ন বেসিনের ট্যাপগুলো বেশির ভাগই ভালো নেই। টয়লেটগুলোর অবস্থা আরো খারাপ । টয়লেটের ভেতরের পানির ট্যাপও বেশিরভাগ ভাঙ্গাচোরা,নষ্ট। ট্যাপ কোনোটা দিয়ে একেবারেই পানি আসেনা আবার কোনটা দিয়ে পরছে বিরতিহীনভাবে। টিস্যু পেপার তো নেই ই সাথে সাবান/হ্যান্ড ওয়াশও নেই।

কোন কোন টয়লেটের ভেতরের অবস্থা এমন যে ভেতরে তাকালেই বমির উদ্রেগ হয় ।
এসব কারনে যেমন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী, অভিভাবক, এমনকি অতিথিদেরও দূর্ভোগে পরতে হচ্ছে ।

এ অবস্থা সম্পর্কে শিক্ষার্থী শুভ বলেন, এটা খুবই বিব্রতকর, মানুষের অতি গুরুত্বপূর্ণ চাহিদাররমধ্যে টয়লেট থাকলেও আমাদের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি’র মত জায়গায় টয়লেট গুলো ব্যবহারের উপোযোগী নয়। প্রচন্ড দূর্গন্ধ ও অপরিচ্ছন্নতার কারনে এগুলো ব্যবহার করা যাচ্ছে না। সুনাম ক্ষুন্ন হচ্ছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ।

গুরতে আসা কয়েকজন অতিথি  জানান ‘ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে এমন বিব্রতকর অবস্থায় পরতে হবে এটা কখনও ভাবতে পারিননি,এরকম টয়লেট মানুষ কিভাবে ব্যবহার করতে পারে’!
টিএসসির ওয়াশরুম নিয়ে নারী শিক্ষার্থীদের মধ্যে ক্ষোভ আরো বেশী।

দর্শন বিভাগের শিক্ষার্থী অনন্যা বলেন ‘আমাদের ওয়াশরুমের অবস্থা এতটাই খারাপ যে খুব বিপদে না পড়লে আমরা যাইনা’। ‘ছেলেদের তুলনায় আমরা মেয়েরা বেশি সঙ্কট এ আছি।’

টিএসসির সুইপার অনিল বলেন,’আমি একা মানুষ এতগুলো টয়লেট একা পরিষ্কার করে কুলায় উঠতে পারিনা।
সবসময়ই ছাত্ররা, সাথে বাইরের মানুষ জন্মদিন পালন করে, বিভিন্ন অনুষ্ঠান করে এলাকা নোংরা করে।
আমরা ৫ জন মাত্র লোক এগুলো পরিস্কার করবো নাকি টয়লেট পরিষ্কার করবো?’
এছাড়াও কিছু নেশাখোর টয়লেটে বসে নেশা গ্রহণ করে বোতল, ইনজেকশন সিরিঞ্জ, কাগজ টয়লেট এর প্যানে ফেলে প্যান জ্যাম করে।
‘নারীরা তাদের ব্যবহার করা বিভিন্ন নেপকিনগুলো পর্যন্ত টয়লেটের ভেতরে ফেলে।আমাকে এসব কিছু নিজের হাত দিয়ে বের করতে হয়’। জানান অনিল।

সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে টিএসসির পরিচালক এ এম এম মহিউজ্জামান চৌধুরী বলেন, ‘আমি নিজেও জানি টিএসসির ওয়াশরুম একটা বিরাট সমস্যা । এর কারণ হিসেবে তিনি বলেন,  ‌’টিএসসি যখন প্রতিষ্ঠা হয় তখন বিশ্যবিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী সংখ্যা ছিল ১০ হাজার আর বর্তমানে শিক্ষার্থী সংখ্যা প্রায় ৪০ হাজার।
তার উপরে টিএসসি একটা জাতীয় পর্যায়ের পাবলিক জায়গা।প্রচন্ড মানুষের চাপ থাকার কারণে প্রতিনিয়তই টিএসসি ওয়াশরুম নোংরা হচ্ছে।

আমাদের মাত্র ১জন সুইপার ও ৪জন পরিস্কার কর্মীর পক্ষে এতো মানুষের চাপ সামলানো খুবই কষ্টকর।

শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্য তিনি বলেন ‘আপনারা যারা টিএসসির ওয়াশরুম ব্যবহার করেন,তারা দয়া করে একটু সচেতন হয়ে ব্যবহার করবেন’।
চলতি অর্থ বছরের মধ্যেই আরো নতুন ৬টি টয়লেট স্থাপন হবে বলেও জানান তিনি।

teletalk

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful